Wellcome to National Portal
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২

এক নজরে বিইপিআরসি

সম্ভাব্য স্বল্প সময়ে বাংলাদেশে টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে নিম্নলিখিত চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবেলা করা অপরিহার্য:

           o পরিচ্ছন্ন শক্তিকে অগ্রাধিকার দিয়ে উপযুক্ত শক্তির সংমিশ্রণ।

           o জীবাশ্ম জ্বালানি-ভিত্তিক শক্তির  উপর নির্ভরতা কমানো এবং বিকল্প শক্তির অনুসন্ধান 

           o ভূতাত্ত্বিক এবং ভূ-রাজনৈতিক বাস্তবতা সাপেক্ষে তেল এবং প্রাকৃতিক গ্যাস প্রাপ্তিতে জ্বালানি  নিরাপত্তা সম্পর্কিত ধারনা ও মূল্যায়ন।

           o জ্বালানি দক্ষতা এবং চাহিদা ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি নির্ভরযোগ্য জ্বালানি সঞ্চয় ব্যবস্থাকে অন্তর্ভুক্ত করে স্মার্ট গ্রিডের প্রবর্তন।

           o প্রতিযোগিতামূলক জ্বালানি শক্তির বাজার সৃষ্টি।

বাংলাদেশের দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার নিমিত্ত সাশ্রয়ী ও টেকসই শক্তির নতুন সরবরাহ নিশ্চিত করার মাধ্যমে উল্লেখিত চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবেলা করার লক্ষ্যেই বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিল গঠন করা হয়। গবেষণা এবং উন্নয়নের মাধ্যমে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন আনার পাশাপাশি জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে " বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিল অ্যাক্ট, ২০১৫" প্রণয়নের পর কাউন্সিল তার কার্যক্রম শুরু করে। ।

 

কাউন্সিলের মূলমন্ত্র: উদ্ভাবন, ইনকিউবেশন এবং উদ্যোক্তা (I2E)

 

উদ্ভাবন: দেশের জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের চাহিদা মোতাবেক নতুন আকর্ষণীয় উদ্ভাবনী সমাধানসমূহ (Innovative Solutions) সংগ্রহ করা;

ইনকিউবেশন: নূতন উদ্ভাবনী প্রযুক্তির পরীক্ষণ, পরিবীক্ষণ ও বাস্তবায়নের নিমিত্ত একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত যথাযথ পরিচর্যা বা উৎসাহ দানের (Incubation) লক্ষ্যে উদ্যোক্তাদের (Entrepreneurs) জন্য প্রয়োজনীয় আর্থিক অনুদান ও গবেষণার স্থান নির্ধারণ করা ;

উদ্যোক্তা: সফল উদ্ভাবনী প্রযুক্তির বাজারজাত করার লক্ষ্যে দেশী বা বিদেশী বিনিয়োগকারীদের সংগে উদ্যোক্তাদের সংযোগ স্থাপন করতে সহযোগিতা করা।

 

বিইপিআরসির লক্ষ্য

১) দেশের জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে গবেষণার অপরিহার্যতা তুলে ধরতে একটি আন্তর্জাতিক মানের অনলাইনবেইজ সেবা কেন্দ্র বা ওয়েব পোর্টাল গড়ে তোলা উক্ত পোর্টালের  মাধ্যমে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের চাহিদা পূরণের জন্য আকর্ষণীয় উদ্ভাবনী সমাধানসমূহ সংগ্রহ করা;

২) দেশের জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের অবকাঠামোগত চাহিদা অনুযায়ী অভ্যন্তরীণ গবেষণা কার্যক্রমের সামর্থ্যকে অধিকতর শক্তিশালী ও সুদূঢ়করণ;

৩) গবেষণা সহায়তা প্রদানের জন্য প্রশাসনিক ও আর্থিক সক্ষমতার উন্নয়নকরণ;

৪) গবেষণা মঞ্জুরী এবং বৃত্তি কার্যক্রমে অর্থায়ন, সমন্বয় এবং পরিবীক্ষণ;

৫) গ্রাহকের চাহিদা মোতাবেক যথাযথ প্রযুক্তি উদ্ভাবনে সহায়তাকরণ; এবং

৬) গবেষণা হতে প্রাপ্ত ফলাফল জনসাধারণের মাঝে প্রচার করণ।

 

কাউন্সিলে-এর দায়িত্বাবলি

১) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রযুক্তির উপর স্বল্প, মাঝারি এবং দীর্ঘমেয়াদী গবেষণা পরিকল্পনার প্রস্তুতি ও বাস্তবায়ন।

২) সমন্বয়, পর্যবেক্ষণ এবং গবেষণা কাজ মূল্যায়ন

৩) বিদ্যুৎ ও জ্বালানির উন্নয়ন, সংরক্ষণ এবং এর দক্ষ ব্যবহার সংক্রান্ত গবেষণা ও উন্নয়ন সংক্রান্ত কাজে উৎসাহ প্রদান।

৪) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংশ্লিষ্ট সরকারি ও বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে প্রায়োগিক গবেষণাকার্যে উৎসাহ প্রদান এবং উক্ত গবেষণাকার্যের সমন্বয় সাধন।

৫) জাতীয় বা আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন গবেষক ও বিজ্ঞানীদের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংক্রান্ত গবেষণা কাজে সম্পৃক্তকরণ।

৬) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিদ্যমান প্রযুক্তির উন্নয়ন, উৎকর্ষতা সাধন ও নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন।

৭) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে উদ্ভাবিত প্রযুক্তির মাধ্যমে জ্বালানি সাশ্রয়ী পণ্যসমূহের উৎপাদন ব্যয় হ্রাসপূর্বক জনগণের ক্রয়সীমার মধ্যে আনয়ন বা গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধির জন্য সরকারের নিকট সুপারিশ প্রদান।

৮) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ক গবেষণালব্ধ ফলাফল ও এর প্রয়োগ সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করার উদ্দেশ্যে সেমিনার, সিম্পোজিয়াম বা কর্মশালার আয়োজন এবং এতদসংশ্লিষ্ট প্রকাশনার ব্যবস্থা গ্রহণ।

৯) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংশ্লিষ্ট পরীক্ষাগার ও গবেষণাগার স্থাপনসহ এতে নিয়োজিত গবেষকগণের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রয়োজনীয়  প্রশিক্ষণ ও উচ্চশিক্ষার কার্যক্রম গ্রহণ।

১০) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের প্রায়োগিক গবেষণার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থের সংস্থান এবং গবেষণালব্ধ ফলাফলের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিতকরণ।

১১) আইন বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় বিধি ও প্রবিধান প্রণয়ন।

১২) বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিদ্যমান সমস্যাসমূহ চিহ্নিতকরণ এবং উক্ত সমস্যা নিরসনে করণীয় সম্পর্কে সরকারকে পরামর্শ প্রদান।


Share with :

Facebook Facebook